মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

আপনার জিজ্ঞাসা

১।  আগ্নেয়াস্ত্র লাইসেন্সের আবেদন ফরম কোথায় পাওয়া যায়?

·        জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের জে এম শাখায় পাওয়া যায়।
 

২। আগ্নেয়াস্ত্র লাইসেন্স পাওয়ার পদ্ধতি কী?

·        একনালা/দুইনালা বন্দুক/রাইফেল লাইসেন্সের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ আবেদন করার পর ডিএসবি শাখার সন্তোষজনক মতামত প্রাপ্তি সাপেক্ষে জেলা প্রশাসক কর্তৃক লাইসেন্স প্রদান করা হয় ।

·        পিস্তল/রিভলবার লাইসেন্সের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ আবেদন করলে ডিএসবি শাখার সন্তোষজনক মতামত প্রাপ্তির পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতি সাপেক্ষে লাইসেন্স প্রদান  প্রদান করা হয় ।
 

৩। বয়স ?

·        আগ্নেয়াস্ত্র লাইসেন্স প্রাপ্তির জন্য আবেদনকারীর বয়স ন্যূনতম ৩০ বছর (প্রযোজ্য ক্ষেত্র ব্যতীত)
 

৪। কি কি কাগজপত্র আবশ্যক ?

·        পাসপোর্ট সাইজের ছবি সত্যায়িত ০৩ কপি, ব্যাংক সলভেন্সী, জন্ম নিবন্ধন, নাগরিকত্ব সনদপত্র, জাতীয় পরিচয়পত্র, আয়কর সার্টিফিকেট, প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ওয়ারিশান সার্টিফিকেট, ব্যবসায়িক ট্রেড লাইসেন্স, ১৫০/-টাকা মূল্যের স্ট্যাম্পে হলফ নামা দাখিল করতে হবে।
 

৫। আগ্নেয়াস্ত্র লাইসেন্স ফি কত?

·        একনালা/দুইনালা বন্দুক ও শর্টগান লাইসেন্সের ক্ষেত্রে ফি-১৫০০/-টাকা।

·        রাইফেল লাইসেন্সের ক্ষেত্রে ফি-২০০০/-টাকা।

·        পিস্তল/রিভলবার লাইসেন্সের ক্ষেত্রে ফি-৫০০০/-টাকা।

৬। কখন নবায়ন করতে হয় ?
 

·        সাধারণত প্রতিবছর ডিসেম্বর মাসে নবায়ন করতে হয়। বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বিশেষ ক্ষমতায় নবায়নের সময়সীমা পরবর্তী বছরের জানুয়ারী মাস পর্যন্ত বৃদ্ধি করে থাকেন।
 

৭। নবায়ন ফি কত ?

·        একনালা/দুইনালা বন্দুক/রাইফেল/শটগান লাইসেন্সের ক্ষেত্রে ফি-১০০০/-টাকা।

·        পিস্তল/রিভলবার লাইসেন্সের ক্ষেত্রে ফি-৩০০০/-টাকা।

 

 

প্রশ্নঃ মোবাইল কোর্ট কি?

 

 উত্তরঃ মোবাইল কোর্ট হচ্ছে মন্ত্রিপরিষদবিভাগের নির্দেশনা মোবাবেক একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কর্তৃক পরিচালিতভ্রাম্যমান আদালত যা কয়েকটি আইন ও অধ্যাদেশের বলে অপরাধীকে তাৎক্ষণিক ভাবেজরিমানা ও কারাদন্ড প্রদান করে থাকে।

 

প্রশ্নঃ ডিটেন্যু এবং নিরাপদ হেফাজতিদের সাথে আত্নীয়-স্বজনদের সাক্ষাৎ করতে হলে তাদের কি করতে হয়?

উত্তরঃডিটেন্যুদের সাথে আত্নীয়-স্বজনদের সাক্ষাৎ করতে হলে তাদেরকে জেলাম্যাজিস্ট্রেট বরাবর আবেদন করতে হয় এবং জেলা ম্যাজিস্ট্রেট বিচার বিশ্লেষণকরে অনুমোদন প্রদান করেন।

 

প্রশ্নঃ কোন কয়েদী মারা গেলে তাদের সুরতহাল কে করে থাকেন?

 

উত্তরঃ কোন কয়েদী মারা গেলে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাদের সুরতহাল করে থাকেন।

 

প্রশ্নঃ কোন কয়েদীর জমি বিক্রি কিংবা ব্যাংক হতে টাকা উত্তোলনের জন্য দলিলে বাচেকে স্বাক্ষর প্রদানের জন্য কার অনুমতির প্রয়োজন হয় এবং কিভাবে অনুমতিপেয়ে থাকে?

 

উত্তরঃ কোন কয়েদীর জমি বিক্রি কিংবা ব্যাংক হতে টাকাউত্তোলনের জন্য দলিলে বা চেকে স্বাক্ষর প্রদানের জন্য জেলা ম্যাজিস্ট্রেটবরাবর আবেদন দাখিল করতে হয়। জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের অনুমোদনক্রমে কার্যকরীব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট জেল সুপার, জেলা রেজিস্ট্রার, সাবরেজিস্ট্রার বরাবর আবেদন পত্র প্রেরণ করা হয়।

 

 প্রশ্নঃ কোন ব্যক্তি আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স পেতে হলে তাদের কোথায় এবং কিভাবে আবেদন করতে হয়?

 

উত্তরঃ কোন ব্যক্তি আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স পেতে হলে সরকার নির্ধারিত ফরমে চাহিততথ্যাদি পূরণপূর্বক জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন পত্র দাখিল করতে হয়।

 

প্রশ্নঃ একজন ব্যক্তি সর্বোচ্চ কয়টি আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স পেতে পারে?

 

উত্তরঃ ১টি শর্ট ব্যারেল ও ১টি লং ব্যারেল।

 

প্রশ্নঃ ব্যক্তিগতভাবে কোন ধরণের আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স পেতে পারে?

 

উত্তরঃ ব্যক্তিগতভাবে ১টি শর্ট ব্যারেল ও ১টি লং ব্যারেল আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স পেতে পারে।

 

প্রশ্নঃ প্রতিষ্ঠান কোন ধরণের আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স পেতে পারে?

 

উত্তরঃ প্রতিষ্ঠান লং ব্যারেলের আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স পেতে পারে।

 

প্রশ্নঃ কোন ধরণের আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স প্রদানের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতির প্রয়োজন হয়।

 

 উত্তরঃ পিস্তল, রাইফেল ও রিভলবার।

 

প্রশ্নঃ কোন ধরণের আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতির প্রয়োজন হয় না।

 

উত্তরঃ শটগান (এক নলা/ দু’নলা বন্দুক) এর লাইসেন্সের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমতির প্রয়োজন হয় না